বিজ্ঞাপন
নিজস্ব প্রতিবেদক
আজ : ২৫শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৯ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, সোমবার প্রকাশ করা : আগস্ট ৯, ২০২১

  • ১০ মন্তব্য

    করোনা মহামারী, পৃথিবী বদলে দেওয়ার গল্প

     

    এডভোকেট রোকন উল ইসলাম:

    চীনের উহান থেকে ছড়িয়ে পড়া অতী অনুবিক্ষনীক এক ভাইরাস জীব, দেখা যায়না কিন্তু তাহার ভয়ে তটস্থ পুরো পৃথিবী, একযোগে লক ডাউন। বিমান, রেল, যানবাহন সবই বন্ধ, থমকে গেল যত শিল্প, কলখানার চাকা। তালা লাগল অফিস, আদালত, স্কুলে।

    পৃথিবীর মানুষ খুজে পাচ্ছে না; কোন কার্যকরী অস্ত্র, ঔষধ। অসহায় মানুষ আক্রান্ত হচ্ছে আর মরছে শয়ে শয়ে।এই যেন বিশ্বযুদ্ধ, কিন্তু সামান্য অদৃশ্যমান শত্রুর হাতে মানবজাতি, সমস্ত ডাক্তার, গবেষণাগার সকলে নিরুপায়, সারা পৃথিবীর সকল নাগরিককে পড়তে হচ্চে মাস্ক, টিকা দেওয়া ছাড়া গতি নেই কারো। আবাল, বৃদ্ধ, বণিতা, ধনী গরীব, মন্ত্রী রাজপুত কাউকে ছাড়েনি এ করোনা, কতো নতুন ঘটনা দুর্ঘটনা, নানা বিচিত্র নবনব গল্পের জন্ম দিয়ে আপন ইতিহাস গড়ে চললো সে।

    কতরকম দৃশ্যপট:

    দৃশ্যপট-১: কারোনাক্রান্ত স্বামী মেঝেতে পড়ে মৃত্যু যন্ত্রনায় কাতরাচ্ছে, স্ত্রী তার মেয়েকে কাছে যেতে না দিতে দুহাতে ধরে আছে।
    দৃশ্যপট-২: করোনা লক্ষণ নিয়ে চাচি মারা গেছে বিল্ডিং এর নীচ তলায়, ভতিজা চাচিকে নেমে দেখতে যায়নি পাশে করোনায় ধরে।
    দৃশ্যপট-৩: করোনায় ভুগে মারা গেছে বাবা। স্ত্রী সন্তান, লাশ আনতে যাচ্ছেনা, লাশ কবরস্ত করতে হয়েছে স্বেচ্ছাসেবক কর্মীরা এসে। ভিডিও কলেই নিকট জনের মুখ দেখা।
    দৃশ্যপট-৪: মৃত ব্যাক্তিকে পারিবারিক কবরস্তানে নিতে বাধা দিয়েছে এমনকি সমাজও, কারো আশ্রয় হচ্ছে গণকবর, অনেককে ভাসিয়ে দিতে হয় নদীতে। এযেন মৃত্যুর মিছিল, সারিসারি নিত্যনতুন কবর।
    >দৃশ্যপট-৫=মানুষ ভয় পাচ্ছে মানুষকেই, আতংক মসজিদ, গির্জা, মন্দির সবখানে। বন্দ হয়ে গেল প্রার্থনাকর্ম, হজ্ব হয়নি মক্কায়। নেই কোলাহল ভরা সামাজিক কোন অনুষ্টান, কারো ঘরে কেউ আসেনি দিনকে দিন।

    আরওযে কত রকম করুন চিত্র:-
    চিত্র-১: স্ত্রী করোনার কারণে একটু অক্সিজেনের জন্য শ্বাষকষ্টে কষ্ট পাচ্ছে দিনের পর দিন, স্বামী নিজের ফুসফুস দিয়ে দিতে চায়, প্রীয়তমা স্ত্রীকে যাতে বাচিয়ে রাখা যায়। যায়নি তবুও। চিত্র-২: বাবা মেয়েকে কোলে করে নিয়ে দৌড়াচ্ছেে এ মেডিকেল থেকে ও মেডিকেলে। অক্সিজেনময় পৃথিবীতে কোথাও এতটুকুন ক্লিনিকেল অক্সিজেনের বেড নেই।
    চিত্র-৩: কাজের অভাবে সবাই খাদ্য সংকটে, ধর্ম বর্ণ ভেদাভেদ ভূলে ত্রান বিতরণ, শহর গ্রাম সবখানে লম্বা লাইন। খাদ্য নেই, চলছে একটি অক্সিজেন সিলিন্ডার জোগাড়ের হাহাকার।
    চিত্র-৪ঃ মা ছেলে করোনায় আক্রান্ত, নিশ্বাষ নিতে পারছেনা কেও, মমতাময়ী মা নিজের অক্সিজেন মাস্ক খুলে দিল কলজের টুকরো পুত্রের জন্য, তারপরেই ঢলে পড়তে হলো মৃত্যুর কোলে।
    চিত্র-৫: পিতা দেশ সেরা মেডিকেলের মালিক, অতি উন্নত চিকিস্সায়ও বাচানো গেলনা তার আপন পুত্রকে। অন্যদিকে বিশাল শিল্পপতি, নামকরা অঢেল টাকার মালিক, মারা গেল সামান্য অক্সিজেনের দুস্প্রাপ্যতা সংকটে।।

    মন্তব্য

    মন্তব্য-১: পৃথিবীর ভারসাম্যটা আমরা মানুষরা নষ্ট করে ফেলেছি, বড় বেশী অত্যাচার করে ফেলেছি তার উপর। পৃথীবীর জন্য একটু স্বস্তির দরকার ছিল। পৃথিবীও প্রতিশোধ নিতে জানে। পৃথিবীময় লকডাউনে পরিবেশের ব্যাপক উন্নতিই হলো বটে।
    মন্তব্য-২:অন্যায়, জুলুম, যুদ্ধ আর নানা পাপে মানব সমাজ নিদারুন কলুষিত আজ। সৃস্টিকর্তার গজব নেমেছে দুনিয়ায়। বিমুখ হয়েছেন তিনি। মানুষ একটু সংযত হও।

    সিদ্ধান্ত

    সিদ্বান্ত: করোনা ছাড়বেনা আমাদের, টিকা নাও, মাস্ক পড়, তবুও হয়তো করোনাকে নিয়েই বাচতে হবে মানুষকে। দুনিয়াতে ঠিকে থাকতে হলে এদের নিয়ে বাচতে শিখতেই হবে মানুষকে। এভাবেই মানুষ বেচে আছে হাজার হাজার বছর।

    অভিমত

    অভিমত: আজকের দিনের এই মহামারী থেকে আমরা যারা আল্লাহর দয়ায় বেচে যাব, অনেক অনেক দিন পর তখন আমাদের নাতী নতনীদের বলব এসব গল্প কথা। পৃথিবী বদলে দেওয়া এক করোনা দানবের সব কেচ্ছা কাহিনী শুনে তারা অবাকই হবে বটে, কে জানে হয়তো বিশ্বাষই করবেনা?

    লেখক ও গবেষক,আইনবিদ রোকন উল ইসলাম।
    আইনজীবী :-চট্টগ্রাম জজকোর্ট,চট্টগ্রাম।
    যুগ্ম সম্পাদক, রাউজান প্রতিদিন,চেয়ারম্যান :- বেসিক রিগ্যাল সার্ভিসেস (বিল ইএসএস)।

    ১০ responses to “করোনা মহামারী, পৃথিবী বদলে দেওয়ার গল্প”

    Leave a Reply

    Your email address will not be published. Required fields are marked *